*আত্ম কথা……

ভাবনা গুলো ছড়িয়ে যাক সবার প্রাণে…

শীর্ষ ১০ পর্ণ স্টার- উৎসর্গ বিমান বন্দর কর্তৃপক্ষ


গত ১৯ ডিসেম্বর আমাদের বিমান বন্দরে পরিক্ষা-মূলক ভাবে দেখানো হয়েছে পর্ন ছবি। আশা করি সামনের দিন গুলো বিমান বন্দর কতৃপক্ষ তা পূর্ন-সম্প্রসারে যাবে। যোগ্য স্থানে অযোগ্য ব্যাক্তি তা আবার প্রমান হইল। যাই হোক সে দিকে গেলাম না।

বিনোদন দেওয়ার জন্য কোন অংশেই কম নয় এই পর্ন মুভি। বিশ্বব্যপি এই পর্ণ শিল্প নেতৃত দেওয়া হয় লস এঞ্জেলস ও ক্যালিওফোরনিয়া থেকে । বর্তমানে একটা হিসেবে দেখা গেছে যে, প্রায় ১০-১৩ মিলিয়ন ডলার এই খাত থেকে আয় করা হয়। এবং এর মধ্যে ৪-৫ মিলিয়ন ডলার হচ্ছে আইন সম্মত আয়। মোট ওয়েব সাইটের শতকরা ১২ ভাগই হচ্ছে পর্ন সাইট, এবং তারা বছরে ২.৪ মিলিয়ন ডলার আয় করছে। বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিন এর হিসেব মতে, মোট সার্চ এর শতকরা ২৫ ভাগই হচ্ছে পর্ন সম্পর্কিত এবং মোট ডাউনলোডের শতকরা ৩৫ ভাগই হচ্ছে বিভিন্ন এডাল্ট কন্টেন্ট। পর্ন বা সেক্স বা স্ক্যান্ডাল ইত্যাদি হচ্ছে খুবই নাম করা ট্যাগ যাতে করে খুব তাড়াতাড়ি একটা সাইটের ট্রাফিক বাড়ানো যায়। ক্রেডিক কার্ড এর মাধ্যমে পর্ন সাইটের ভিডিও বিক্রি করা আয়ের একটা অন্যতম ক্ষাত।

যাই হোক, আমি আপনাদের কে কয়েকজন খুবই নামি দামী পর্ণ তারকাদের জীবন যাপন এবং তাদের অনেক না জানা কথা আংশিক আপনাদের বলব। অনেক গুলা পর্ণ তারকাদের মধ্য থেকে যাচাই বাচাই করে শীর্ষ দশ জন কে নিয়ে আমার এই লেখা , আমার লেখায় যে সব পর্ণ তারকাদের নিয়ে লেখা হয়েছে এর বাহিরেও আরো অনেকেই আছে আপনারা একটু খুজলেই পাবেন। আমি এই লেখা লিখতে সাহায্য নিয়েছে উন্মুক্ত বিশ্বকোষ উইকিপিডিয়া ও অন্যান্য ভিনদেশী ব্লগিং সাইট, আর এই লেখার আইডিয়া আসে বিভিন্ন ব্যাক্তির ফেসবুক স্টাট্যাস ও এয়ারপোর্ট এর ঘটনা থেকে। এই লেখায় প্রকাশ করা বিভিন্ন তথ্য এবং এর বিশ্লেষন আমার নিজের মতামত নয় এমনকি আমি প্রতিটা তথ্য বিভিন্ন উৎস থেকে সংগ্রহ করার পর যাচাই বাচাই করে আমার কাছে যেটি উপযুক্ত মনে হয়েছে সেটিই প্রকাশ করেছি।

১০/শিখা (Seka):

এটা ২০০৬ এ তোলা ছবি

জন্ম ১৯৫৪ সালে ভার্জেনিয়া তে, প্রায় ২০৮ টির মত ঐ কামের ছবি তে সে নামে বেনামে মূল চরিত্র অভিনয় করেছে, তখনকার সময়ে তার প্রায় ছবি গুলো খুবই হিট হয়েছিল। তার রূপের জন্য একাধিকবার পুরুষ্কার ও পেয়েছিল। এই লাইনে আসার আগে নুড স্থির ছবির মডেল ছিল যা প্রথম ক্যপচার করা হয় বাল্টিমোরে কিন্তু সে তখন ও নাবালিকা। তার জামাই মিয়া চটি বইয়ের ব্যবসা করত এবং এই ব্যবসাই তাকে আসল কামে অনুপ্রানিত করত এছাড় নুড ছবির মডেল হয়েও তার আর খায়েস মিটত না তাই আসল কামে নিয়মিত ভাবে মন নিবেশ করতে থাকল। তার ভাষ্য মতে ২৫ বছর বয়স থেকে সে আসল কাম শুরু করে। ৭০ থেকে ৮০ এর দশকে তার চারদিকে খুব নাম ডাক। প্যাটিনাম নামের চুলের স্টাইল পছন্দ ছিল, প্রচন্ড পরিমান মেকাপ লাগাত এবং নাচের পোশাক পরে সব সময় চলাফেরা করত যাতে নিজেকে বেশি অকর্ষনীয় মনে হয়। শিখার ঐ কামের জন্য প্রিয় পুরুষ এর মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য ছিল জন হলমেস। ৮০ দশকের মাঝামাঝিতে এডস এর কারনে সে তার পেশা ত্যগ করে। কিন্তু এরপরেও সে থামে নাই ৯০ দশকে সে আরো কয়েক টি পর্ণ ছবিতে কাজ করে। শিখার ক্যরিয়ার নিয়ে আলোচনা করা হয় শিকাগোর একটা রেডিও স্টেশন সেই অনুষ্ঠানে শিখা ও উপস্থিত ছিলো এবং ২০০২ সালে এই মহান লুইচ্ছা মহিলারে নিয়ে একটা ডকুমেন্টরি বানানো হয়েছিল নাম ‘ডেসপারেটলি সিকিং শিখা’। তার সাথে যে কেউ ইচ্ছা করলে যোগাযোগ করতে পারেন, সে খুব বড় মাফের আড়ৎদার। তার ব্যক্তিগত ওয়েব সাইট প্রতিদিন আপডেট হয়। সেখানেও তার সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পারবেন কিন্তু নিজ দ্বায়িত্বে তবে ভাইরাস থেকে সাবধান থাকবেন।

০৯/ রোক্কো শিফার্ডি (Rocco Siffredi):

রোক্কো শিফার্ডি

জন্ম ৪ মে ১৯৬৪ ইতালিতে। এই লুইচ্ছা একাই একশ, একসাথে অভিনেতা, পরিচালক আবার প্রযেজক ও বটে । ইউরুপের বিভিন্ন দেশে তার খুব অধিপত্য ছিল, তার পেশার সাথে রিলেটেড লোকজনেরা তারে এক নামে চিনত নাম্বার ওয়ান… রোক্কো খান । আরেকজন পর্ন ছবির অভিনেতার হাত ধরে ১৯৮৪ সালে তার এই জগতে পদার্পন। প্রথম দিকে মডেলিং করত এর পর আস্তে আস্তে আসল কামে জড়িয়ে পড়ে। প্রায় ৪০০ টা ছবিতে উনি উনার উপর অর্পিত দ্বায়িত্ব খুব ভালো ভাবে পালন করেন। তাকে ইতালিয়ান তেজি ঘোড়া ও বলা হত। ধরনা করা হয় ইনি খুব তেজী পর্ণ স্টার এনার মত শক্তি বা সামর্থ্য এই শিল্পতে অন্য আরো নাই। এনার ছবি লোকজন খুব পছন্দ করত কারন ইনি শুধু আসল কামেই করত না সেই সাথে কমেডি থাকত রোমাটিকতা থাকত, এইসব কিছু তার জনপ্রিয়তা বাড়াতে খুব সহায়ক ছিল। ১৯৯৩ সালে রোজা নামের একবেটিরে বিয়া করে। ২০০৪ সালে ইনি ঘোষনা দেয় উনি আর এই কাম করবেন না কারন তার পোলাপান বড় হইতাছে হেরা জানবার চায় হেগো বাপ কি কাম করে তাগো মুখে অন্ন তুলে দ্যয়। টানা পাঁচ বছর পর্ণ শিল্প তার অভাব হাড়ে হাড়ে টের পাইছিল, সে একটা জিনিস আছিলো এই শিল্পের সাথে লোক জনের আর বুঝতে বাকী ছিল না। সে নাকি এই শিল্পের আইডল ছিল। ২০০৯ সালে তিনি আবার আসল কামে যোগ দিল। এই পর্যন্ত উনি ৪০ টার মত এই কামের জন্য সন্মাননা পাইছেন। দুই সন্তানের জনক রোক্কো শিফার্ডি । তার দুই সন্তানের এড ফার্ম ছিল তাদের বানানো এডগুলা খুবই আপত্তিজনক বিধায় কোন টিভিতে ঐ এড গুলা দেখানো হয় নি এমন কি সেই এড গুলো ব্যন করে দেওয়া হয়েছিল।

০৮/ মারলিন চ্যাম্বার (Marilyn Chambers):

২০০৫ এ ফক্স এওয়ার্ড এর সময়

জন্ম ২২ এপ্রিল ১৯৫২ আমারিকার। পি এন্ড যে কোম্পানীর আইভেরি স্লো নামক ডিটারজেন্ট পাউডারের এড করে মারলিন চ্যাম্বার রাতারাতি অনেক জনপ্রিয় হয়ে যান। এবং এই এড টিভিতে প্রচার হওয়ার পর সে একটা পর্ণ ছবিতে অভিনয় করার অফার পায় নাম ‘Behind The Green Door’ এবং সেই ছবির কারনে পি এন্ড যে কোম্পানীর বিক্রি বেড়ে যায় বলে মারলিন চ্যাম্বার মনে করত, কিন্তু এড ফার্ম আর পি এন্ড যে কোম্পানী নানান সমালোচনা ও বিতর্কের মধ্যে পড়েছিল। তার বাপের ছিল এড ফার্ম আর মা আছিল নার্স, তিন ভাই বোনের মধ্যে উনি সবার ছোট। মারলিন মডেলিং করুক এটা তার বাপ চাইতো না। মডেলিং ছাড়াও নাচতে ও নাচাতে জানত। উনি কখনও লো বাজেট এর মুভিতে অভিনয় করতো না। ১৯৭২ সালে আমিরিকা প্রবাসী এক আফ্রিকান অভিনেতার সাথে সে আরেকটা পর্ন ছবিতে ঐ কামের অভিনয় করে, যা আমেরিকা ও তখন কার পর্ণ ইন্ডাস্ট্রিতে ব্যপক অলোচনার বিষয় হয়। যেমনটি হয়েছিল প্রভা আর রাজিব কাহিনী। মারলিন চ্যাম্বার উপর ১৪৪ ধারা জারি করা হয় ‘তুই সাদা চামরার মানুষ হইয়াও ক্যন কালু মানুষের কাছে নিজের ইজ্জত বেচলি’ হারামজাদি! উনি আবার লিসবিয়ান ও ছিল। ১৯৮০ সালে উনি আরেক টা ছবি করে যা ৮২ সাল পর্যন্ত টপ সেলিং লিস্টে ছিল।প্রায় ২৪ টার মতন ছবি তে উনি অভিনয় করেছেন। একপর্যায়ে যখন ক্লান্ত তখন ঐ কাম থেকে ফিরে আসে। ২০০৪ সালের একটা স্বাক্ষাতকারে উনি আম জনতার জন্য মহামূল্যবান একটা উপদেশ ‘এই লাইনে কেউ আসবা না’। ২০০৪ এমরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লিবারেল পার্টির হয়ে উনি ৯৪৬ ভোট পায়। । মস্তিকে অতিরিক্ত রক্তক্ষরনে ১২ এপ্রিল ২০০৯ সালে মাত্র ৫৭ বছর বয়সে দুনিয়ার মায়া ত্যাগ করে চলে গেছেন না ফেরার দেশে।

০৭/শাসা গ্রে (Sasha Grey):

ক্যালিওফোরনিয়ার নর্থ হাই ল্যন্ড এ ১৪ মার্চ ১৯৮৮ সালে উনার জন্ম সেই হিসেবে ২০০৬ সালে শাসা গ্রে তার ১৮ বছর পার করে। এর পর তাকে তার পিছনে ফিরে তাকাতে হয় নি। বাপ ছিল একজন মেকানিক আর তাই তার মাইয়া মেকানিজম দেখাইয়া টেহা ইনকাম করে। শাসা বয়স ৫ বছর থাকতে তার মা-বাপের চাড়াচাড়ি হয়ে যায় হেরপর সে তার মায়ের লগে থাকত কিন্তু আটমেটলি সে একাই জীবন যাপন করতে লাগল। মাত্র ১৭ বছর বয়েসে উনি গ্রেজুয়েশন শেষ করে এর পর সে একটা কলেজে নাচ ও অভিনয়ের উপর ক্লাস নিতো। তার জনপ্রিয়তা পাবার মূল কারন হচ্ছে তাকে বাস্তবে দেখতে যতটা না আকর্ষনীয় কিন্তু স্ক্রীনে তাকে আরো আকর্ষনীয় লাগে। তার অভিষেক হয় রোক্কো শিফার্ডি কে দিয়ে। ক্যারিয়ারের ৬ মাস না যেতেই গ্রে এডাল্ট ফিল্ম এওয়ার্ড পেয়ে গেল। এবং এই এওয়ার্ড পর তাকে বলা হত পরবর্তি জেনা জেন্মসন (উনি আবার পর্ণ কুইন, পড়তে থাকেন সামনে এনার কথাও আছে ) ।  শাসা এই কাম ছাড়াও আরো অনেক কাম জানত মডেলিং করা ছবিতোলা ও নাচা-কুদা। অনেক গুলো মিউজিক ভিডিও করেছিলেন।তিনি বহুগুনে গুনান্নিত এর জন্য অনেক পুরুষ্কার পেয়েছিলেন। আমেরিকার রোলিং স্টোন ম্যগাজিনে ডিসেম্বর ২০০৮ এ উনি হট ইস্যু ছিল। স্টিভেন সডেরবার্গ ( ছবির পরিচালক) তিনি একবার শাসার কে নিয়ে লিখা একটা আরটিকেল পড়েছিল আর সেই আর্টিকেল পড়ে এবং ২০০৯ সালে মুক্তি পাওয়া ‘ দ্যা গার্লফ্রেন্ড এক্সপিরিয়েন্স’ ছবিতে মূল চরিত্রে তাকে দিয়ে অভিনয় করালো। এই ছবিতে অভিনয় করার কারনে তার রেট বেড়ে গেল। বর্তমানে Entourage কমেডি ড্রামা সে ভিসেন্ট চেজ এর গার্লফ্রেন্ডের চরিত্র অভিনয় করে। এছাড়াও উনার নিজের প্রোডাকশন হাউজ আছে এল এ ফেক্ট্রি গার্লস। চলতি বছরে নভেম্বর মাসে তার একটা বই বের হয়। ২০০৬ সাল থেকে সে তার বায়োগ্রাফী লেখা শুরু করছে কিন্তু এখনও শেষ হয় নাই। বর্তমানে উনি একটা পরিবেশ বাদী আন্দলনের সাথে সম্পৃক্ত আছেন।

০৬/ ইলোনা স্টিলার (Ilona Staller):

২০০৯ এ তোলা ছবি

উনারে সবাই চিনে কিক্কিওলিনা নামে উনার আসল নাম আন্না ইলেনা স্টিলার। জন্ম ২৬ নভেম্বর ১৯৫১ বুদাপেষ্ট, হাংগেরিতে। উনার দুই নম্বর বাবা অনেক বড় মাফের সরকারী অফিসার ছিল। ১৯৭০ এর দিকে স্টিলার ইতালিতে চলে আসে ইতালিতে এসে একসময় উনি পলিটিক্স এর সাথে যুক্ত হয়ে যায়। ১৯৭৩ সালে উনি রেডিও লুনা তে রেডিও জকির কাজ করে তার শো এর নাম ছিল…মনু! আমার লগে ঘুমাইবা ? এছাড়া ১৯৭০ এ টুকটাক ছবিতে অভিনয় করার সুযোগ পায়। ১৯৮৩ সালে ‘দ্যা রেড টেলিফোন’ ছবির মাধ্যমে উনি আসল কাম কাজ চালু করেন । ১৯৮৭ সালে জন হলমেস সাথে আরেকটা ছবি করে। ইনি নানান ছবিতে অভিনয়ের পাশি পাশি নানান নগ্ন ছবির মডেল ও হয়েছেন । ১৯৭৯ সালে একটা দল করত তারপর সেই থেকে পল্টি খাইয়া ১৯৮৫ সালে অন্য দলে চলে যায়। আর সেই দলের পক্ষ হয়ে ন্যটো এর বিরুদ্ধে মানবধিকারের আন্দলন করে।১৯৮৭ সালে প্রায় ২০,০০০ ভোটে ইটালির পার্লামেন্টে উনি নির্বাচিত হয় এবং ১৯৯১ সাল পর্যন্ত পারলামেন্টের সদস্য ছিল।একই বছর উনি এমেরিকার এক স্ক্যপটর কে বিয়ে করে কিন্তু জামাই মিয়া তারে দিয়াও নানান ধান্ধা করত তাই এই বিয়া ১৯৯২ সালে সাটডাউন হয়ে যায়। উনি একাধিক বার প্লে-বয় ম্যাগাজিনে নুড মডেল হয়েছিলেন, ১৯৮৮ সালে আর্জেন্টিনার প্লে-বয় ম্যাগাজিনে প্রথম তার ছবি উঠে। উনি সাদ্দাম হোসেনের লগে কু-কাম ঘটানোর জন্য সাদ্দাম রে প্রস্তাব দেয় এবং এর বিনিময়ে সাদ্দাম এর কাছে বন্ধি থাকা বিদেশী লোকজনকে মুক্তি চায় সে এর পর কি হয়েছে আমি কইতাম পারি না। তয় উনি উনার আসল কাম চালাই যাইতাছেন কারো কুনো কথা শুনেন না উনি কিন্তু অন্যনা পলিটিশিয়ান খুব মনে কষ্ট ছিল তার উপর (কিসের মনের কষ্ট হের পক্ষে আর সবাইরে আর সন্তুস্ট করা সম্ভব না) তো তিনি একবার উনার এক বক্ষ অনাবৃত রেখে একটা কড়া রাজনৈতিক ভাষন দিয়েছিলেন। তার আরেকটা গুন ছিল গান গাওয়া কিন্তু তার গাওয়া গান গুলাস ইতালিতে মুক্তি পায় নাই কিন্তু অন্যান দেশে খুব হিট হয়েছিল বিশেষ করে ফ্রান্সে।সর্বশেষ পাওয়া তথ্য মতে উনার বয়স ৫৮ এবং এক পোলার জননী কিন্তু বাপ কেডা? আমিও কইতাম পারি না। উনি এখন উনার সোনালী অতীত এর কথা ভেবে কয় ‘ আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম’।

পরের অংশ এইখানে

About these ads

8 responses to “শীর্ষ ১০ পর্ণ স্টার- উৎসর্গ বিমান বন্দর কর্তৃপক্ষ

  1. জয় সরকার ডিসেম্বর 27, 2010 at 1:48 পুর্বাহ্ন

    ভালো কাজ করেছেন…………বাকীগুলো লিখে ফেলুন। :P

    • রাহাত ডিসেম্বর 30, 2010 at 9:52 অপরাহ্ন

      হুম…অবশ্যই লিখব… কয়েকটা দিন অপেক্ষা করতে হবে…ইজি কাজে ভিজে গেছি…

  2. coolrafi ডিসেম্বর 27, 2010 at 7:50 অপরাহ্ন

    kisu kisu pornstar ase jemon stormy daniyel era nijer issate porn markete asheni……daridrota ederke pornstar hote baddo korese

    • রাহাত ডিসেম্বর 30, 2010 at 9:47 অপরাহ্ন

      অভাবে স্বভাব নষ্ট আর কি…মন্তব্য করার জন্য ধন্যবাদ…

  3. তৌফিক হাসান ডিসেম্বর 29, 2010 at 2:48 অপরাহ্ন

    ;)
    খালি চোখটিবি মাইরা গেলাম।

    • রাহাত ডিসেম্বর 30, 2010 at 9:35 অপরাহ্ন

      কারে চোখটিবি দিলেন ?…এসব করলে কিন্তু ঈভটিজং এর মামলা খাইয়া যাবেন…;-)

  4. তৌফিক হাসান জানুয়ারি 10, 2011 at 12:30 অপরাহ্ন

    অই মিয়া পরের পোষ্ট কবে ছাড়বেন?

    • রাহাত জানুয়ারি 11, 2011 at 12:34 পুর্বাহ্ন

      হা…হা…আমার লেখার জন্য কেউ অপেক্ষা করে জানতাম না…আজ নিজেকে কুতুব কুতুব মনে হচ্ছে…লেখাটা ড্রাফট করাই আছে…জাষ্ট আরো কিছু মাল-মশলা দিতে হবে…

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

Follow

Get every new post delivered to your Inbox.

Join 25 other followers

%d bloggers like this: